সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
গোল্ডেন জুবিলি আওয়ার্ড পেয়েছেন নারী উদ্যোক্তা মেহেরপুরের নিলুফার ইয়াসমিন রুপা দুটি কথা (মাসাদুল সেখ) সোনিয়ার শরীরের ভেতর বেড়ে উঠছে আরেকটি শরীর সাভার ও আশুলিয়ার তিন কারখানাকে ক্ষতিপূরণ ধার্য মেহেরপুরে ইয়েস বাংলাদেশ এর উদ্যোগে গাছের চারা বিতরণ। মেহেরপুরে নিলুফার ইয়াসমিন রুপার বিরুদ্ধে মিথ্য, ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশ করার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন ‘‘যার নাম শুনলে ভয়ে ঘুমিয়ে যেত মায়ের কোলের শিশু’’ সেই রওশন আলী মেহেরপুর কারাগারে গাংনীর রাইপুর ইউনিয়নে নারী শিক্ষার্থীদের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ গাংনী ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক মালিক সমিতির সংবাদ সম্মেলন ছিনতাইয়ের পাঁচদিন আগে আমঝুপি নীলকুঠিতে পরিকল্পনা করে ছিনতাইকারীরা

গাংনীতে জোর পুর্বক ভবন নির্মাণ কাজ বন্ধের দাবীতে নির্যাতিত এক নারীর সংবাদ সম্মেলন।

 

মেহেরপুর প্রতিনিধিঃ

জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধে বিজ্ঞ আদালতে মামলা চলমান অবস্থায় জোরপূর্বক পাকা বিল্ডিং নির্মান বন্ধের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন গাংনীর হাসপাতাল পাড়ার নাসিমা খাতুন। মঙ্গলবার দুপুরে গাংনী প্রেসক্লাবে উপস্থিত হয়ে তিনি সংবাদ সম্মেলন করেন। ভুক্তভোগী নাসিমা খাতুন গাংনী হাসপাতাল পাড়ার মৃত নুরুল ইসলামের স্ত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে নাসিমা খাতুন বলেন, আমার স্বামী নুরুল ইসলাম কর্তৃক বিগত ৮/০২/২০১৭ ইং তারিখে রেজিষ্ট্রিকৃত দলিল যার নং-১২৪৪ এর মাধ্যমে ২.২৫ শতাংশ জমি এবং ২৪/৮/২০১৮ ইং তারিখে রেজিস্ট্রিকৃত দলিল যার নং-৫৩৬৭ এর মাধ্যমে এর মাধ্যমে ১.২৫ শতাংশ জমির মালিকানা প্রাপ্ত হই। উক্ত জমি খারিজ করতে ভূমি অফিসে গেলে দেখি স্থানীয় মৃত আকবর আলীর ছেলে মোনায়েম হোসেন আদালত থেকে বাতিল কৃত দলিল দ্বারা অসাধু পন্থায় নিজ নামে খারিজ করে নেন। আমি মোনায়েম হোসেনের নামে খারিজ বাতিলের জন্য খুলনা বিভাগীয় কমিশনারের বরাবর কেস নথিভুক্ত করি যা বর্তমানে বিজ্ঞ আদালতে চলমান আছে। উল্লেখিত ২.২৫ শতাংশ জমিতে তিন তলা ভবন নির্মাণ করে বসবাস করছি। এবং ১.২৫ শতাংশ জমির ওপর উচ্ছেদ মামলা চলমান রয়েছে। বিজ্ঞ আদালতে মামলা চলমান অবস্থায় মোনায়েম হোসেন ১.২৫ শতাংশ জমিতে স্থায়ী পাকা ভবন নির্মাণ করে জোর দখলের চেষ্টা করছে। মোনায়েম হোসেনের এ কাজে আমরা বাধা দিতে গেলে মোনায়েম হোসেন তার লোকজন নিয়ে প্রাণ নাশের হুমকি দিচ্ছে। এ বিষয়েও গাংনী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে যার নং-১০০৬, তারিখ-২২/৬/২০১৯।

নাসিমা খাতুন আরো বলেন, মোনায়েম হোসেন তার সন্ত্রাসী বহিনী দিয়ে আমার বাড়ির অন্যান্য ভাড়াটিয়াদের বাড়ি ছেড়ে দেবার হুমকি অব্যাহত রেখেছে। এমনকি আমার বাড়ির মুল গেটে বাহিরে তালাবদ্ধ করে আমাকে অবরুদ্ধ করে রাখার চেষ্টা করে। এ অভিযোগ করা হয় গাংনী থানায়। আমার স্বামী নুরুল ইসলাম ২৬/০৬/২০২১ তারিখে স্ট্রোকে মারা যান । পরিবারের আমি এখন মানবেতর জীবন যাপন করছি। বিজ্ঞ আদালতসহ স্থানীয় প্রশাসনের কাছে আমার নিরাপত্তাসহ জোরপুর্বক ভবন নির্মাণ কাজ বন্ধের দাবী জানান ভুক্তভোগী নাসিমা খাতুন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেসবুকে আমরা

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন